নিজস্ব প্রতিবেদক

অন্যকে জানাতে পারেন:

peyaz
ফাইল ছবি

দেশে বাজারে আবার বেড়েছে পেঁয়াজের দাম। গত পাঁচ দিনে নিত্যপ্রয়োজনীয় এই পণ্যের দাম প্রতি কেজিতে ১৫ টাকা বেড়েছে। বৃহস্পতিবার রাজধানীতে এক কেজি ভারতীয় পেঁয়াজ ৫০ এবং দেশি পেঁয়াজ ৬০ টাকায় বিক্রি হয়েছে।

সবজি ও মাছের দাম বেশ কয়েক দিন ধরেই চড়া। চালের দামও তেমন কমছে না। এর ওপর পেঁয়াজের মূল্যবৃদ্ধি সাধারণ মানুষের জীবনযাত্রার ব্যয় আরেকটু বাড়াল। এর আগে গত আগস্টে দাম বাড়তে বাড়তে দেশি পেঁয়াজ প্রতি কেজি ৬৫-৭০ এবং ভারতীয় পেঁয়াজ ৫৫ টাকায় উঠেছিল। পবিত্র ঈদুল আজহার কয়েক দিন পর দাম কমতে থাকে। চলতি মাসের প্রথম দিকে প্রতি কেজি দেশি পেঁয়াজ ৪০ এবং ভারতীয় পেঁয়াজ ৩৫ টাকায় বিক্রি হয়।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, পেঁয়াজের এই মূল্যবৃদ্ধির কারণ ভারতে দাম বেড়ে যাওয়া। ভারতীয় দৈনিক টাইমস অব ইন্ডিয়ার মঙ্গলবারের খবর অনুযায়ী, দেশটির মহারাষ্ট্রের নাসিকের লাসালগাঁও পাইকারি বাজারে ১০ দিনে পেঁয়াজের দাম ৮০ শতাংশ বেড়েছে। সোমবার সেখানে প্রতি কেজি পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে সাড়ে ২৪ রুপি দরে। সেখানকার পাইকারি ব্যবসায়ীদের দাবি, চাহিদা ও জোগানের মধ্যে সামঞ্জস্য না থাকায় দাম বাড়ছে।

ঢাকার কৃষিপণ্যের পাইকারি বাজার শ্যামবাজারকেন্দ্রিক আমদানিকারক মো. মাজেদ বলেন, পেঁয়াজ পচনশীল বলে আমদানি করে দ্রুত বিক্রি করতে হয়। দাম বাড়লেও আমদানিকারকদের এখনো লোকসান হচ্ছে।

তিনি বলেন, ‘৪০ টাকা দরে পেঁয়াজ আমদানি করে আমি কিছুদিন আগে কেজি ১০-১২ টাকায় বিক্রি করেছি। এতে বিপুল লোকসান হয়েছে। এখনো ভারতীয় পেঁয়াজ আমদানি করে কারও লাভ হচ্ছে না।’

এদিকে বাজারে সবজির দাম এখনো চড়া। বেশির ভাগ সবজির কেজিপ্রতি দাম ৬০ টাকার ওপর। ভালো মানের বেগুন, বরবটি, ঢ্যাঁড়স, ঝিঙে, চিচিঙ্গা, করলা, শসা ইত্যাদির প্রতি কেজির দাম ৭০ থেকে ৮০ টাকা। একটি লাউ বিক্রি হচ্ছে ৫০-৬০ টাকায়। একটি জালি কুমড়া কিনতে খরচ হচ্ছে ৪০ টাকা। কম দামি সবজির মধ্যে আছে কাঁচা পেঁপে, প্রতি কেজি ২০-২৫ টাকা।

কাঁচা মরিচের দাম সামান্য কমেছে। ১০০ গ্রাম ২০ টাকা ও ২৫০ গ্রাম ৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এক কেজি কিনলে দাম পড়ছে মানভেদে ১৩০ থেকে ১৬০ টাকা, যা গত সপ্তাহে ২৫০ টাকায় উঠেছিল।

আপনার মন্তব্য