বিনোদন ডেস্ক

অন্যকে জানাতে পারেন:

আসিফ আকবর ও প্রীতম আহমেদ। ফাইল ছবি

অফিসিয়ানদের অনুরোধে ফেসবুক লাইভে “আসিফ আকবর” আলোচনার বিষয় প্রীতম আহমেদ...এমন ক্যাপশন দিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক লাইভে আরেক গীতিকার ও গায়ক প্রীতমের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন জনপ্রিয় সঙ্গীত শিল্পী আসিফ আকবর। গত ১০ই সেপ্টেম্বর ফেসবুক লাইভে প্রীতমকে ভারসাম্যহীন বলেন এবং তাকে শায়েস্তা করার কথাও বলেন।

সম্প্রতি, প্রীতম আহমেদ গায়ক আসিফের এমন বক্তব্যের পাল্টা জবাব দিতে গিয়ে একটি ভিডিও পোস্ট করেন। ভিডিওটির ক্যাপশনে প্রীতম লেখেন, ‘সম্প্রতি আমাকে নিয়ে গায়ক আসিফ আকবরের ফেইসবুক লাইভ ভিডিওটি ভাইরাল হয়েছে। আমার স্বভাবসুলভ বিনয় ও ভদ্রতাকে দুর্বলতা ভেবে উনি যতভাবে সম্ভব মিথ্যে কথা বলে অপমান করার চেষ্টা করেছেন। এই ভিডিওতে আমি তাকে কোন আক্রমন করিনি। যেহেতু সবারই একটি সামাজিক পরিচিতি ও অবস্থান রয়েছে এবং আমাকে মানসিক বিকারগ্রস্থ ও সাইকো হিসেবে অভিযুক্ত করা হয়েছে তাই তার কথাগুলো কতটা সত্য তা যুক্তি দিয়ে তুলে ধরার চেষ্টা করেছি। আশা করি আপনারা ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন। মাদক ও সন্ত্রাস মুক্ত সমাজ ও দেশের সকল গীতিকার সুরকারদের অধিকার প্রতিষ্ঠার প্রত্যাশায়।- প্রীতম আহমেদ”

প্রীতম তার পোস্ট করা ভিডিওতে বলেন, ‘গত তিনদিন ধরে আমাকে নিয়ে বেশ সমালোচনা ও হাসাহাসি হচ্ছে। যার সূত্রপাত করেছেন আমাদের দেশের একজন গায়ক আসিফ আকবর। আসিফ ভাই তার লাইভে এসে আমাকে ব্যাক্তিগত আক্রমণ করেছেন। আমি এই বিষয়ে কিছু সংযোজন করতে চাই। তিনি আমার সম্পর্কে না জেনে অনেক কথা বলেছেন। আমি জীবনে অনেক সংগ্রাম করেছি। টিউশনি করিয়েছি এটা নিয়ে হাসাহাসির কিছু নেই। আমি এইসব বিষয়ে কথা বলার আগে যে গানটি নিয়ে সমস্যা হয়েছিলো সেটা নিয়ে বলি। গানটির টাইটেল ছিলো সেম সেম। আমাদের দেশে তখন মঙ্গা হচ্ছিলো। সে সময় একটা হিন্দি গান (ধুম মাচালে) বাংলাদেশে সুপার হিট হলো। সেটার উপহাস করেই গানটি করা। কিন্তু আসিফ ভাই বলছে আমি তার গানকে (বাঁচবোনা) বিদ্রূপ করে করেছি। এটা কি ইচ্ছা করে করছে না। বিষয়টা কি জোর যার মুল্লুক তার এমন হয়ে গেলনা।’

তিনি আরোও বলেন, ‘আসিফ ভাই তার নিজের মুখে বলেন তিনি আমাকে মারবেন। সামনে পেলে হয়তো মারতেন। এই মারামারির ইতিহাস কিন্তু আপনার পরিবারে অনেক আগে থেকেই আছে।’

প্রীতম একটা ভিডিও সূত্র দেখিয়ে বলেন, কুমিল্লায় অন্যতম দুইজন রাজাকারদের মধ্যে আপনার বাবা একজন। সে সময় আপনাদের বাড়িতে পাকহানাদারদের আড্ডা ছিলো, বাড়ির সামনে তাদের অনেক গাড়ি থাকতো। এর থেকে বোঝা যায় মারামারির ইতিহাস অনাদের পরিবারে অনেক আগে থেকেই। সরাসরি লাইভে এসে মারার হুমকি বা শায়েস্তা করার হুমকি দেয়ার পর আমি সাভাবিক ভাবে কিছুটা হলেও ভীত এবং আমার মনে প্রশ্ন জাগে যে একজন রাজাকারের সন্তান একাত্তরের মত করেই আমাকে হুমকি দিচ্ছে। তিনি একজন রাজাকারের সন্তানই না পাশাপাশি একজন বড় আর্মি অফিসারের ভাই হয়েও এইভাবে প্রকাশ্যে শায়েস্তা করার হুমকি দিয়েছে। আমার মনে হয় সংবাদগুলো পত্রপত্রিকা ও অনলাইনগুলিতে আছে এইগুলো বিবেচনা করা উচিত। আমি বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও সংশ্লিষ্ট প্রশাসনকে অনুরোধ করবো জনগণের নিরাপত্তা ও রাষ্ট্রের স্বার্থে পত্রপত্রিকায় যা আসে তা যেন যাচাই-বাছাই করা হয়।’

এদিকে এ বিষয় নিয়ে কথা বলতে আসিফ আকবরের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

আপনার মন্তব্য