Rohingya
ছবি: সংগৃহীত

জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকে মিয়ানমার সরকারের প্রতি রোহিঙ্গাদের উপর চলমান সেনা অভিযান বন্ধ করার প্রস্তাব সর্বসম্মতি ক্রমে পাশ হয়েছে। সহিংসতা বন্ধে জরুরি পদক্ষেপ গ্রহণ করতে দেশটির সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘ। সেই সাথে মিয়ানমার সরকারকে নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের কাছে ত্রাণ কার্যক্রম পরিচালনার সুযোগ করে দেয়ারও আহ্বান জানানো হয়েছে।

মিয়ানমারে চলমান সহিংসতায় রোহিঙ্গা হত্যা, নির্যাতনের ঘটনায় বুধবার জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে এক জরুরি বৈঠক ডাকা হয়। এই বৈঠক থেকেই সর্বসম্মতি ক্রমে এসব সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের এই বৈঠকে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে চলমান সেনাবাহিনীর অভিযান নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়। নিরাপত্তা পরিষদের বিবৃতিতে ‘রাখাইনে সহিংসতা বন্ধে জরুরি পদক্ষেপ, পরিস্থিতির উত্তরণ, আইনশৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনা এবং বেসামরিকদের সুরক্ষা নিশ্চিত করার আহ্বান জানানো হয়।

জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকে মিয়ানমার ইস্যুতে বিগত ৯ বছরে এই প্রথম পরিষদের সকল সদস্যদের সম্মতি ক্রমে প্রস্তাব পাশ হয়েছে। মিয়ানমারে চলমান রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে পরিষদের স্থায়ী সদস্য যুক্তরাজ্য ও অস্থায়ী সদস্য সুইডেন বৈঠকের আহ্বান জানিয়েছিল। এর প্রেক্ষিতে বুধবার এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

জাতিসংঘ শরণার্থী সংস্থা জানায়, ২৫শে আগস্ট নতুন করে সংঘাত শুরু হওয়ার পর থেকে ৩ লাখ ৭০ হাজার রোহিঙ্গা শরণার্থী বাংলাদেশে পালিয়ে আশ্রয় নেয়। মিয়ানমারে শুরু হওয়া সেই সংঘাতে এ পর্যন্ত নিহত হয়েছে চারশ জনেরও বেশি।

আপনার মন্তব্য