Police do not give to go hefajot islam
ছবি: সংগৃহীত

 

রোহিঙ্গা নির্যাতনের প্রতিবাদে ঢাকার বারিধারায় ‘মিয়ানমার দূতাবাস ঘেরাও’ কর্মসূচিতে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের পদযাত্রা পুলিশের বাধায় শান্তিনগরেই শেষ হয়ে গেছে।

বুধবার বায়তুল মোকাররম থেকে রওনা হয়ে সংগঠনটির কয়েক হাজার কর্মী শান্তিনগর মোড়ে পুলিশের ব্যারিকেডের সামনে পড়ে। পরে তারা সেখান থেকে বায়তুল মোকাররমের দিকে ফিরে যান।

পুলিশ বলছে, জনদুর্ভোগ এড়াতে মিছিল করে না গিয়ে দলটির পাঁচজন প্রতিনিধিকে দূতাবাসে গিয়ে স্মারকলিপি দেওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

মিয়ানমার সরকারের নির্দেশে সেনা অভিযানে রোহিঙ্গাদের ওপর চলমান ‘নির্যাতন, হত্যা, ধর্ষণের’ প্রতিবাদে গত শুক্রবার রাজধানীর বায়তুল মোকাররম মসজিদের উত্তর গেইটে এক সমাবেশে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের নায়েবে আমির মুফতি সৈয়দ ফয়জুল করিম দূতাবাস ঘেরাওয়ের এই কর্মসূচি দেন।

সে অনুযায়ী সংগঠনটির নেতাকর্মীরা বুধবার সকাল ৯টার দিকে বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেইটে জড়ো হতে শুরু করলে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

ইসলামী আন্দোলনের চেয়ারম্যান রেজাউল করীম ও কয়েকজন জ্যেষ্ঠ নেতা এ সময় বক্তব্য দেন।

পরে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে সংগঠনটির নেতা-কর্মীরা মিয়ানমার দূতাবাসের উদ্দেশে পদযাত্রা শুরু করে। পল্টন নাইটিংগেল মোড় হয়ে শান্তিনগর মোড়ে পৌঁছানোর পর পুলিশ তাদের আটকে দেয়।

ইসলামী আন্দোলনের নেতা-কর্মীরা সেখানে কিছুক্ষণ অবস্থান করে পরে বায়তুল মোকাররমের দিকে ফিরে যায় বলে শাহবাগ থানার পরিদর্শক (পেট্রোল) আবুল বাশার জানান।

ঢাকা মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ কমিশনার এইচ এম আজীমুল হক বলেন, “জনদুর্ভোগের কথা মাথায় রেখে আমরা এত মানুষকে এত দূর যেতে দিইনি। পাঁচজন প্রতিনিধিকে স্মারকলিপি নিয়ে যেতে দেওয়া হয়েছে।”

ইসলামী আন্দোলনের কর্মীরা ফিরে যাওয়ার পর বেলা সাড়ে ১২টার দিক থেকে শান্তিনগর এলাকায় যান চলাচল স্বাভাবিক হতে শুরু করে।

আপনার মন্তব্য