ক্রীড়া ডেস্ক

অন্যকে জানাতে পারেন:

ছবি: সংগৃহীত

সাড়ে আট বছর পর পাকিস্তানে ফিরলো আন্তর্জাতিক ক্রিকেট। লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে যেসব দর্শক খেলা দেখতে উপস্থিত হয়েছেন, তারা সবাই বলতে গেলে খুব ভাগ্যবান। টি-টোয়েন্টির যে মজা, সেটাই তারা আস্বাদন করতে পারলেন। টস হেরে ব্যাট করতে নেমে বিশ্ব একাদশের সামনে ১৯৮ রানের পাহাড়সম লক্ষ্য দাঁড় করিয়ে দিয়েছে সরফরাজ আহমেদের দল।

সাড়ে আট বছর পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফিরল পাকিস্তানের মাটিতে। কঠোর নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে আয়োজন করা হলো বিশ্ব একাদশের বিপক্ষে তিন ম্যাচের এই টি-টোয়েন্টি সিরিজ।

টস জিতে পাকিস্তানকে ব্যাট করার আমন্ত্রণ জানান বিশ্ব একাদশের অধিনায়ক ফ্যাফ ডু প্লেসিস। ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ফাখর জামানের উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে পাকিস্তান; কিন্তু দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে বাবর আজম আর আহমেদ শেহজাদ মিলে পাকিস্তানকে বিশাল স্কোরের পথে নিয়ে যান। আউট হওয়ার আগে বাবর আজমের সঙ্গে ১২২ রানের জুটি গড়েন আহমেদ শেহজাদ।

৩৪ বলে ৩৯ রান করেন শেহজাদ। ব্যাট হাতে ঝড় তোলেন বাবর আজম। ৫২ বল খেলে ১০ বাউন্ডারি আর ২ ছক্কায় ৮৬ রান করেন তিনি। শোয়েব মালিক যেন টর্নেডো বইয়ে দেন। ২০ বলে ৪ বাউন্ডারি আর ২ ছক্কায় করেন ৩৮ রান। ইমাদ ওয়াসিম শেষ দিকে ৪ বল খেলে ১৫ রান করে অপরাজিত থাকেন।

বিশ্ব একাদশের হয়ে শ্রীলঙ্কার থিসারা পেরেরা ৫১ রান দিয়ে নেন ২ উইকেট। ৩৮ রান দিয়ে ১ উইকেট নেন বেন কাটিং, ৩২ রান দিয়ে ১ উইকেট মরনে মর্কেল, ৩৪ রান দিয়ে ১ উইকেট নেন ইমরান তাহির।

বিশ্ব একাদশ (প্লেয়িং ইলেভেন): তামিম ইকবাল, হাশিম আমলা, ফাফ ডু প্লেসিস (অধিনায়ক), ডেভিড মিলার, গ্র্যান্ট এলিয়ট, থিসারা পেরেরা, টিম পেইনে (উইকেটরক্ষক), বেন কাটিং, ড্যারেন স্যামি, মরনি মরকেল, ইমরান তাহির।

পাকিস্তান একাদশ: আহমেদ শেহজাদ, ফখর জামান, বাবর আজম, শোয়েব মালিক, সরফরাজ আহমেদ (অধিনায়ক, উইকেটরক্ষক), ইমাদ ওয়াসিম, ফাহিম আশরাফ, শাদব খান, সোহেল খান, হাসান আলী, রুম্মন রইস।

আপনার মন্তব্য